ধানমন্ডি মহিলা কমপ্লেক্সের সুইমিং পুলের বাথরুমের সিলিংয়ে ফুটো পাওয়া গেছে। বাথরুমগুলো সুইমিংপুলের গ্যালারির ঠিক নিচে। গ্যালারির সিঁড়ির নিচে পরপর তিনটি বাথরুম বরাবর এসব ফুটো করা হয়েছে। ধানমন্ডি মহিলা কমপ্লেক্স এর সাঁতার শিখছে এরকম একজনের কাছ থেকে ভিডিওটি সংগ্রহ করে তাসনোভা ফারহিম নামে এক নারী তা ফেসবুকে পোস্ট করেছেন।

ধানমন্ডির এ কমপ্লেক্সে বহু নারী সাঁতার শিখতে আসেন। সাঁতারের পর যে বাথরুমে গোসল করেন, সেখানে এমন ফুটো থাকায় তাদের মধ্যে উদ্বেগ তৈরী হয়েছে।

তাসনোভা ফারহিম ভিডিওটি পোষ্ট করে ফেসবুকে লিখেছেন,
”প্লিজ ভয়ংকর ভিডিওটি দেখুন। ধানমন্ডি মহিলা কমপ্লেক্সে সাঁতার শিখছে এরকম একজনের কাছ থেকে পাওয়া।

গতকাল সাঁতার শেষে বাথরুমে গোসল করতে গিয়ে ১ জন উপরে তাকিয়ে দেখে সিলিং এ ১ টা ফুটা করা এবং সেখান দিয়ে তাকিয়ে কেউ ১ জন দেখছে। সাথে সাথে চিৎকার করে উঠলে ধুপধাপ শব্দে কাউকে পালিয়ে যেতে শুনতে পায়। খোঁজ নিয়ে দেখা গেল বাথরুম গুলো হচ্ছে সুইমিংপুলের গ্যালারির (বসার সিড়ি) ঠিক নিচে। তিনটা বাথরুমের উপরে এভাবে ফুটা করা হয়েছে, যেই ৩ টা তে আলো এবং পানি বেশি আসে বলে সবাই ব্যবহার করে।

আজকে গিয়ে দেখা যায় ফুটা গুলা মাটি দিয়ে আটকানো। চিরুনি দিয়ে ১ টা ফুটা খুলে পুরোটা ভিডিও করা হয়। কম্পলেক্স এ একজন বুড়া দারোয়ান আছেন। কিন্তু প্রতিদিন সুইমিংপুল এর গেইট খোলে আর বন্ধ করে দারোয়ানের ছেলে (৩০ মতন বয়স)। ভিডিও সহ কম্পলেক্স এর অফিসে কম্পলেন করা হলে বলা হয়, যে উনারা ব্যাপারটা দেখবেন এবং এবং ওই ছেলের চাকরি নট করবেন। কিন্ত আর কোন পদক্ষেপ নেয়ার ব্যাপারে কোন গা করে নি। বরং অবিশ্বাসের ভংজ্ঞিতে বলেছে, ড্রিল মেশিন দিয়ে এটা কিভাবে সম্ভব… আর ওই লোকের তো এমন করার কথা না, সে তো এখানে ৭ বছর যাবৎ কাজ করছে। উল্টা যারা কম্পলেন করতে গেছে তাদের কে কর্তৃপক্ষ প্রশ্ন করেছে, ১২:৩০ এ তো সুইমিং এর সময় শেষ, আপনারা ১২:৩০ এর পরেও থাকেন কেন!!??

আজকে গিয়ে দারোয়ানকে দেখতে পেলেও দারোয়ান এর ছেলেকে দেখা যায় নি।

4544485