দেশে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার পাশাপাশি পুলিশ অনেক সামাজিক কর্মকা-ে সঙ্গে জড়িত বলে জানিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া।

তিনি বলেন, পুলিশ বাহিনী সামাজিক ও মানবিক অনেক কাজ করে। যেমন সাধারণের জন্য ব্লাড ব্যাংক, বিভিন্ন অনুষ্ঠানে বিনামূল্যে পানি বিতরণ, দুই ঈদ ও শীতে বস্ত্র বিতরণ এবং প্রাকৃতিক দূর্যোগে সবার আগে পুলিশ ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ায়।

বুধবার বিকালে ডিএমপি’র সদরদপ্তরে পপুলার লাইল ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের লাশবাহী ফ্রিজার গাড়ী হস্তান্তর উপলক্ষে তিনি এ কথা বলেন।
কমিশনার বলেন, প্রতি বছর বহু পুলিশ সদস্য স্বাভাবিক এবং অস্বাভাবিক মৃত্যু বরণ করে কিন্তু তাদের লাশ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছানো কষ্টসাধ্য ছিল। কিন্তু এখন থেকে পপুলারের দেয়া ডিএমপির একমাত্র লাশবাহী ফ্রিজার গাড়ীর প্রয়োজন হবে।

পুলিশের ভাবমূর্তি উন্নত করতে ডিএমপির ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা প্রতিদিন একাধিক থানায় ঘুরে বেড়াচ্ছে উল্লেখ করে কমিশনার বলেন, মাঠ পর্যায়ে পুলিশ সদস্যরা তাদের ব্যবহারে বিনয়ী হতে নিরন্তর চেষ্টা করছে। পুলিশকে আইন প্রয়োগ করতে হবে ভদ্রভাবে। কেউ কেউ খারাপ ব্যবহার করলেও খারাপ ব্যবহার করা যাবে না, গালি দিলেও গালি দেয়া যাবে না বলে জানান তিনি।

উন্নত বিশ্বের উদ্বেগ নিয়ে তিনি বলেন, যারা আমাদের দেশ নিয়ে বড় বড় কথা বলে সেইসব উন্নত দেশগুলোতে একদিনে যে অপরাধ হয়; বাংলাদেশে সারা মাসেও তা হয় না। এমনিক সেইসব দেশগুলোতে লোডশোডিং হলেই ধর্ষণ বেড়ে যায়।

কমিশনার আরও বলেন, ট্রাফিক বিপ্লব ঘটাতে চাই নগরবাসী সহায়তায়। চেকপোস্টগুলোতে আগে যে পরিমাণে বাঁধা আসতো এখন সেখানে ১০ শতাংশে কমে এসেছে। সবাইকে ডিসিপ্লিন মানতে হবে। পুলিশের প্রতি মানুষের প্রত্যাশা পূরণ একদিনে সম্ভব নয়, সময় দিতে হবে, আমরা চেষ্টা করছি আপনাদের সহেযাগীতায় প্রত্যাশা পূরণে কাজ করবো। সুত্রঃ আমাদের সময় ডট কম

35223