হঠাৎ ‘যমজ ভাই’য়ের দেখা পেয়ে দারুণ খুশি নেইমার। ‘ভাই’য়ের কাঁধে হাত রাখলেন, চুলে হাত বুলিয়ে আদর করলেন, সেলফিও তুললেন একসঙ্গে। আবার ‘দেখা’ করার অঙ্গীকারও করলেন বার্সেলোনার ব্রাজিলিয়ান তারকা।

না, ছেলেবেলায় হারিয়ে যাওয়া ভাইয়ের সঙ্গে দেখা হয়নি নেইমারের। ব্রাজিল অধিনায়কের দেখা হয়েছে নিজের মোমের মূর্তির সঙ্গে। বলাই বাহুল্য, মূর্তিটার নির্মাতা বিশ্ব বিখ্যাত মাদাম তুসো জাদুঘর। প্রথম দেখায় মূর্তিটার সঙ্গে নেইমারকে আলাদা করাই মুশকিল। বার্সার তারকা ফরোয়ার্ডের কাছে তাই এটা তাঁর ‘যমজ ভাই’!


আজ মঙ্গলবার বার্সেলোনার নিজস্ব অনুশীলন মাঠে মূর্তিটা দেখে অভিভূত হয়ে পড়েন নেইমার। পরে বিস্ময় সামলে ফক্স৩৫অরল্যান্ডো ডটকমকে তিনি বলেন, ‘আমি যেন আমার যমজ ভাইকে দেখছি! গোল করার রোমাঞ্চকর অভিজ্ঞতা এক জিনিস, আর মোমের মাধ্যমে নিজের ক্যারিয়ারের প্রতিফলন দেখতে পাওয়া আরেক জিনিস।’

২০১৪ বিশ্বকাপে গোল করার পর নেইমারের উদযাপনের আদলে গড়া হয়েছে এই মোমের মূর্তি। সেই একই ভঙ্গিতে মূর্তিটার পাশে দাঁড়িয়ে ছবি তোলেন ব্রাজিলের সবচেয়ে বড় তারকা। তারপর মাদাম তুসো জাদুঘরের শিল্পীদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘মাদাম তুসোর অবিশ্বাস্য দল আমার জীবনের এক গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তকে মোমের মাধ্যমে মূর্ত করে রেখেছে। এটা আমার জন্য বিশাল সম্মান।’

খুব শিগগির মূর্তিটাকে যুক্তরাষ্ট্রের অরল্যান্ডোর মাদাম তুসো জাদুঘরে রাখা হবে। সেই দিনটির জন্য যেন তর সইছে না নেইমারের, ‘সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে থাকা ভক্তদের মোমের যমজটা দেখানোর জন্য আমি আর অপেক্ষা করতে পারছি না!’

324647